‘নগদ’ বাংলাদেশ ডাক বিভাগের একটি ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস যা বিকাশ, রকেট ইত্যাদির মতই একটি নতুন মোবাইল অর্থ লেনদেন সেবা।


অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মতই নগদ ব্যবহার করা যাবে USSD (*167#) ডায়াল করে এবং মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে। এর পাশাপাশি নগদ অ্যাকাউন্ট খোলার সময় আপনাকে একটি ১৬ ডিজিটের অ্যাকাউন্ট নম্বর প্রদান করবে। এই অ্যাকাউন্ট নম্বর ব্যবহার করলেও লেনদেনের কাজ করা যাবে। এছাড়াও নগদ কার্ড নামে একটি সুবিধার কথা জানা গেলেও সেটি ভার্চুয়াল নাকি প্লাস্টিক কার্ড সে বিষয়ে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি। নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট এবং মার্চেন্ট পয়েন্ট থেকে QR কোডের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন এবং পেমেন্ট করা যাবে।

অ্যাকাউন্ট খুলতে নিচের ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন হবে।

ন্যাশনাল আইডি কার্ড / পাসপোর্ট / ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং ১টি ফটোকপি
১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি
পরিচয়পত্রের মূল কপি সাথে আনতে হবে এবং প্রদর্শন করতে হবে। পরিচয়পত্রের সাথে ফর্মের সকল তথ্য মিল থাকতে হবে। পরিচয়পত্র হিসেবে ন্যাশনাল আইডি কার্ড, পাসপোর্ট এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স গ্রহণযোগ্য হবে। বাংলাদেশের যেকোনো টেলিকম অপারেটরের নম্বর দিয়েই নগদ অ্যাকাউন্ট খোলা যায়। অ্যাকাউন্ট খোলার সময় একটি অতিরিক্ত জরুরী যোগাযোগের নম্বরও ফর্মে প্রদান করতে হবে।


নগদের দৈনিক ও মাসিক লেনদেনের লিমিট
একজন ব্যবহারকারী দৈনিক পৃথকভাবে ২,৫০,০০০ টাকা করে ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট এবং সেন্ড মানি করতে পারবে। প্রতিদিন ১০ বার করে ক্যাশ ইন ও ক্যাশ আউট এবং ৫০ বার সেন্ড মানি করা যাবে। প্রতিটি লেনদেনে সর্বোচ্চ ৫০,০০০ টাকা করে পাঠানো যাবে। প্রতি মাসে একজন ব্যবহারকারী পৃথকভাবে ৫,০০,০০০ টাকা করে ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট এবং সেন্ড মানি করতে পারবে। মাসে সর্বোচ্চ ৫০ বার করে ক্যাশ ইন ও ক্যাশ আউট এবং ১৫০ বার সেন্ড মানি করা যাবে। এছাড়াও প্রতিবার সর্বোচ্চ ১০০০ টাকা করে আনলিমিটেড বার মোবাইল রিচার্জ করা যাবে। এ ধরণের বিশাল লিমিট ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য অনেক উপকারী হবে। 

লেনদেনের চার্জ
নগদ অ্যাকাউন্টে লেনদেনের চার্জ বিকাশ এবং রকেটের চাইতে কম। ক্যাশ ইন করলে তা সম্পূর্ণ ফ্রি। এজেন্ট পয়েন্ট থেকে সাধারণভাবে ক্যাশ আউট করলে প্রতি হাজারে ১৮ টাকা চার্জ প্রযোজ্য হবে।

#www.abtech24.com